৬৪ বছর আগের নজির ফেরালেন সাউদি-খালেদরা

0
171

ডেস্ক রিপোর্ট: হ্যামিল্টন টেস্টে কাল প্রথম দিনের খেলায় অতিরিক্ত খাতে কোনো রান দেয়নি দুই দলের বোলাররা
প্রথম দিনে চা-বিরতির পরপরই প্রথম ইনিংসে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। এ জন্য বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের পাশাপাশি নিউজিল্যান্ড বোলারদের অবদানও কম না। উইকেট তেমন একটা বোলিংবান্ধব না হলেও সুইং আর বাউন্স আদায় করে নিয়েছেন নিল ওয়াগনার-ট্রেন্ট বোল্টরা। নিউজিল্যান্ডের বোলারদের শৃঙ্খলারও প্রশংসা করতে হয়। প্রথম দিনের খেলায় ‘মিঃ এক্সট্রা’কে খালি হাতে ফেরানোর পেছনে যে কিউই বোলারদের অবদানই বেশি!
হ্যামিল্টন টেস্টে প্রথম দিনের খেলা শেষে বিষয়টি অনেকেরই নজর এড়িয়ে গেছে। বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসের স্কোরকার্ডে বেশির ভাগ ক্রিকেটপ্রেমী হয়তো শুধু তামিম ইকবালের সংগ্রহই দেখেছেন। আর বাংলাদেশের সমর্থকদের জন্য নিউজিল্যান্ডের স্কোরকার্ড দেখার কী আছে! কোনো উইকেট তো আর পড়েনি। এই ফাঁকে অনেকেই খেয়াল করেননি প্রথম দিনে দুই দলই অতিরিক্ত খাতে কোনো রান দেয়নি।
প্রথম ইনিংসে ৫৯.২ ওভারে ২৩৪ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। এর প্রতিটি রান ব্যাটসম্যানদের করে নিতে হয়েছে। ওয়াইড, নো, বাই, লেগ বাই খাতে একটি রানও দেয়নি নিউজিল্যান্ডের বোলাররা। পরে কিউইরা ব্যাটিংয়ে নেমে প্রথম দিনে ২৮ ওভার ব্যাট করেছে। এ সময় পর্যন্ত বাংলাদেশের বোলাররা উইকেট না পেলেও ছিলেন ভীষণ সুশৃঙ্খল। তাঁরাও অতিরিক্ত খাতে কোনো রান দেননি। স্বাভাবিকভাবে তাই প্রশ্নটি ওঠে, টেস্ট ক্রিকেটে ‘এক্সট্রা’ রান ছাড়া এমন দিন সবশেষ কবে দেখা গেছে?
৬৪ বছর আগে সবশেষ এমন দিন দেখা গিয়েছিল টেস্ট ক্রিকেটে। ১৯৫৫ সালে লাহোর টেস্টে ভারতের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ১৮৭ ওভার ব্যাট করে ৩২৮ রান তুলেছিল পাকিস্তান। প্রথম দিন তো বটেই দ্বিতীয় দিনের খেলারও বেশির ভাগ সময় ব্যাট করেছিল আবদুল কারদারের দল। আশ্চর্যের ব্যাপার, পাকিস্তানের এই প্রথম ইনিংসে ভারতের বোলাররা অতিরিক্ত খাতে একটি রানও দেয়নি। তারপর কাল-ই প্রথমবারের মতো টেস্ট ম্যাচের এক দিনে অতিরিক্ত খানে কোনো রান দেওয়ার নজির গড়লেন দুই দলের বোলাররা।
বাংলাদেশের বোলাররা আজ অবশ্য এই শৃঙ্খলা ধরে রাখতে পারেননি। অতিরিক্ত খাতে এরই মধ্যে ৬ রান দিয়েছেন তাঁরা। চা-বিরতির পর ব্যাটিং চালিয়ে যাওয়া নিউজিল্যান্ড এই প্রতিবেদন পর্যন্ত ৩ উইকেটে ৩৫৮ রান তুলেছে। হাতে ৭ উইকেট রেখে প্রথম ইনিংসে এরই মধ্যে ১২৪ রানের লিড নিয়েছে স্বাগতিক দল। জোড়া সেঞ্চুরি করে আউট হন দুই কিউই ওপেনার টম লাথাম ও জিত রাভাল। দ্বিতীয় সেশনে রাভালকে তুলে নেন মাহমুদউল্লাহ। চা-বিরতির এক ওভার পর লাথামকে (১৬১) তুলে নেন সৌম্য সরকার। রস টেলরকেও ফিরিয়েছেন এই ‘পার্ট টাইম’ মিডিয়াম পেসার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here