মামুনুল শুধু বলতেন বিয়ে করব, করছি: ঝর্ণা

আমি একজন আলেমকে ভরসা করে সরল বিশ্বাসে তার সঙ্গে ঢাকায় চলে আসি। ঢাকা আসার পর শুরুতে তার পরিচিত বিভিন্ন অনুসারীদের বাসায় আমাকে রাখে এবং নানাভাবে আকার ইঙ্গিতে আমাকে কু প্রস্তাব দিতে থাকে। এক পর্যায়ে আমার পারিপার্শ্বিক অবস্থার কারণে তার প্রলোভনে পা দিতে বাধ্য হই।’

বিয়ে করব, করছি- এমন আশ্বাস দিয়ে হেফাজতে ইসলামের নেতা মামুনুল হক যৌন সম্পর্ক স্থাপন করতেন বলে তার বিরুদ্ধে করা ধর্ষণ মামলায় অভিযোগ তুলেছেন জান্নাত আরা ঝর্ণা

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানায় সকালে এসে নিজে বাদী হয়ে মামলাটি করেন ঝর্ণা, যিনি গত ৩ এপ্রিল সোনারগাঁয়ের রয়্যাল রিসোর্টে মামুনুলের সঙ্গে স্থানীয়দের হাতে অবরুদ্ধ হন।

মামলায় বাদী জানান, অসহায়ত্বের সুযোগে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গত দুই বছর ধরে ঢাকা ও ঢাকার পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন এলাকায় ঘোরাঘুরির নামে দৈহিক মেলামেশা করতেন হেফাজত নেতা মামুনুল।

সাবেক স্বামীর ঘনিষ্ঠ বন্ধু হিসেবে ২০০৫ সালে মামুনুলের পরিচয় হয় জানিয়ে বাদী এজাহারে বলেন, ‘পরিচয়ের পূর্বে আমাদের দাম্পত্য জীবন অত্যন্ত সুখে শান্তিতে অতিবাহিত হচ্ছিল, যার ফলশ্রুতিতে আমাদের ঘরে দুজন সন্তান জন্মলাভ করে।

‘স্বামীর ঘনিষ্ঠ বন্ধু হিসেবে আমাদের বাসায় মামুনুল হকের অবাধ যাতায়াত থাকার সুবাদে পরিচয়ের শুরু থেকেই আমার ওপর তার লোলুপ দৃষ্টি পড়ে। যার ফলে আমাদের ছোটখাটো সাংসারিক মতানৈক্যের মধ্যে সে সুকৌশলে প্রবেশ করে ধীরে ধীরে আমাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে দূরত্ব তৈরি করতে থাকে। মামুনুল হকের কুমন্ত্রণায় আমাদের দাম্পত্য জীবন চরমভাবে বিষিয়ে ওঠে।’

 

 

 

Author: Faruk

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *