পদ্মা সেতুতে প্রথম দিনেই চলবে ট্রেন

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের দিন থেকেই অন্যান্য পরিবহনের সঙ্গে ট্রেন চলবে বলে জানিয়েছেন রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।

মুন্সিগঞ্জের মাওয়ায় পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের ভায়াডাক্ট-২ এর মাওয়া প্রান্তে মূল সেতুর সঙ্গে সংযোগ কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘আগামী বছর যখন পদ্মা সেতু চালু হবে, একই দিনে পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে মাওয়া প্রান্ত থেকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পর্যন্ত ট্রেন চলবে।’

 

 

পদ্মা সেতুতে প্রথম দিনেই চলবে ট্রেন

1021.jpg

পদ্মা সেতুতে প্রথম দিনেই চলবে ট্রেন

2

Shares

facebook sharing buttontwitter sharing buttonlinkedin sharing button

৪ মে, ২০২১ ১৭:১০তানজীর মেহেদীতানজীর মেহেদী

110.jpg

রেলমন্ত্রী বলেন, ‘আগামী বছর যখন পদ্মা সেতু চালু হবে, একই দিনে পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে মাওয়া প্রান্ত থেকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পর্যন্ত ট্রেন চলবে।’

 

 

 

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের দিন থেকেই অন্যান্য পরিবহনের সঙ্গে ট্রেন চলবে বলে জানিয়েছেন রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।

 

120.gif

মুন্সিগঞ্জের মাওয়ায় পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের ভায়াডাক্ট-২ এর মাওয়া প্রান্তে মূল সেতুর সঙ্গে সংযোগ কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে তিনি এ কথা বলেন।

 

মন্ত্রী বলেন, ‘আগামী বছর যখন পদ্মা সেতু চালু হবে, একই দিনে পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে মাওয়া প্রান্ত থেকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পর্যন্ত ট্রেন চলবে।’

 

20210128054620.gif 114.gif

পদ্মা সেতুকে দেশের একটি বড় অর্জন উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘এটি দেশের একটি বৃহৎ সামর্থ্য। পদ্মা সেতুতে সড়ক ও রেলপথ যুক্ত আছে। রেল অংশটি ঢাকা থেকে যশোর পর্যন্ত ১৭২ কিলোমিটার দীর্ঘ। পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের নির্ধারিত মেয়াদ ২০২৪ সাল পর্যন্ত ধরা আছে।’

 

তবে আগামী বছর পদ্মা সেতু উদ্বোধনের দিনে মাওয়া প্রান্ত থেকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পর্যন্ত ট্রেন চালু অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘দ্রুত কাজ চলমান আছে।’

 

রেলমন্ত্রী বলেন, ‘করোনা এবং লকডাউনের মধ্যেও প্রকল্পের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় কার্যক্রম চলমান আছে। মাওয়া প্রান্তে পদ্মা সেতুর সঙ্গে ভায়াডাক্ট-২ সংযোগ স্থাপিত হয়েছে।’

 

20210119021451.gif

এ বছরের এপ্রিল পর্যন্ত মাওয়া থেকে ভাঙ্গা অংশের সার্বিক অগ্রগতি ৬৬ শতাংশ এবং সম্পূর্ণ প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি ৪১ দশমিক ৫৯ শতাংশ বলেও জানান মন্ত্রী।

 

রেলপথমন্ত্রী মাওয়া প্রান্ত ঘুরে পরে শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে যান এবং সেখান থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত চলমান রেললাইন নির্মাণকাজ পরিদর্শন করেন।

 

এ সময় সংশ্লিষ্ট প্রকল্প পরিচালক গোলাম ফখরুদ্দিন আহমেদ চৌধুরী, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ধীরেন্দ্র নাথ মজুমদার, কনস্ট্রাকশন সুপারভিশন কাজের বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কর্মকর্তাসহ প্রকল্পের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

এর আগে রোববার সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী জানান, ২ মে মাওয়া প্রান্তে ভায়াডাক্টের সবশেষ গার্ডার স্থাপনের মাধ্যমে পদ্মা সেতুর স্ট্রাকচারের কাজ শেষ হয়েছে।

 

তিনি বলেন, ‘এ পর্যন্ত মূল সেতুর নির্মাণকাজের অগ্রগতি শতকরা ৯৩ দশমিক দুই পাঁচ ভাগ। নদীশাসন কাজের অগ্রগতি শতকরা ৮৩ ভাগ এবং প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি শতকরা ৮৫ দশমিক ৫ ভাগ। আশা করছি, ২০২২ সালের জুন মাসে পদ্মা সেতু যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হবে।

Author: Faruk

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *