প্রধানমন্ত্রী কোরআন-সুন্নাহর বাইরে কিছু করেন না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্র

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী (শেখ হাসিনা) দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছেন। তিনি নিজেও একজন মুসলমান। তিনি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়েন। সময় মতো তাহাজ্জুত নামাজ পড়েন, কোরআন পড়েন। তার হাতে বাংলাদেশ। তিনি কোরআন-সুন্নাহর বাহিরে কিছু করেন না।

তিনি বলেন, ইসলাম ধর্ম কখনও সহিংসতার কথা বলে না। ইসলাম শান্তির ধর্ম। যারা হেফাজতের নামে দুস্কর্ম করে, নিষ্ঠুরতা করে, অত্যাচার করে এরা মানুষ না, এরা অমানুষ।

শুক্রবার (৭ মে) দুপুরে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানের মধুপুরে গত ২৮ মার্চ হেফাজতের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ি পরিদর্শন শেষে এসব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

সে সময় তিনি বলেন, এ ধরনের নিষ্ঠুরতা, অত্যাচার ও নৃশংসতা যারা করে এটা কোনো ধর্মের উদ্দেশ্য নয়। অরাজকতা সৃষ্টির মাধ্যমে রাজনৈতিক ফায়দা নেওয়ায় ছিল তাদের মূল উদ্দেশ্য।

আসাদুজ্জামান কামাল বলেন, আমি নিজে এসে দেখে গেলাম, আমি আপনাদের সাথে ওয়াদা করছি যারা এ সংহিংসতার সঙ্গে জড়িত তাদের সবাইকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় নিয়ে আসব।

তিনি আরও বলেন, আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে, এখানে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। যে যেখানেই জড়িত রয়েছেন, তাদের আইনে সোপর্দ করবই। এ নৃশংসতায় মামলা যেগুলো হয়েছে বা হয় নাই, তদন্ত করে সবাইকে আইনের আওতায় নিয়ে আসব। নিষ্ঠুরতা, নৃশংসতা আর বর্বরতা হতে দেব না।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান, অতিরিক্তি ডিআইজি নূরে আলম মিনা, মেজর জেনারেল এ কে এম হুমায়ুন কবির (অব.), মুন্সীগঞ্জের পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন, সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন আহমেদ, জেলা পিআইবির মো. আনোয়ারুল হক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ ফয়েজুল ইসলাম, সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিকসহ উপজেলার বিভিন্ন ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠনের নেতারা।

গত ২৮ মার্চ হেফাজতে ইসলামের ডাকা হরতালকে কেন্দ্র করে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানের রাজনগর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি এসএম আলমগীর কবিরের বাড়িসহ ওই ইউনিয়নের ১০টি বাড়িঘর ভাঙচুর এবং অগ্নিসংযোগ করে হেফাজতের কর্মীরা।

Author: Faruk

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *