মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও পাওনাদি পরিশোধের দাবীতে মানববন্ধন

নিজেস্ব প্রতিনিধিঃ

ঢাকায় মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও সকল পাওনাদি পরিশোধসহ বন্ধ কারখানা খুলে দেয়ার দাবীতে মানববন্ধন করেছেন শ্রমিকরা। রোববার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ তৃণমূল গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের আয়োজনে এই মানববন্ধন করেন আশুলিয়ার জিরাবো কাঠগড়া বাজার এলাকার লিলি এপারেলস লিমিটেড নামের একটি পোশাক কারখানার কয়েক’শ শ্রমিক ও ফেডারেশন নেত্রীবৃন্দ। এসময় মামলা প্রত্যাহার, বকেয়া টাকা পরিশোধ ও বন্ধ কারখানা খুলে দেয়ার দাবী জানান শ্রমিকরা। মানববন্ধন শেষে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেন তারা। বাংলাদেশ তৃণমুল গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশন এর সভাপতি মোঃ শামীম খাঁনের নেতৃত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক জোট বাংলাদেশ এর সভাপতি মাহাতাব উদ্দিন শহিদ, বাংলাদেশ তৃণমূল গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আলমগীর শেখ লালন, মোঃ সুজন, মোঃ ফরিদুল, মোঃ মামুন, মোঃ শাহীন ও মোঃ মাসুদসহ আরো অনেকে। এসময় নেতারা বলেন, আশুলিয়ার কাঠগড়া বাজার এলাকার লিলি এপারেলস লিমিটেড নামের একটি পোশাক কারখানার কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের ঈদুল ফিতরের বোনাস অর্ধেক দেয়। বাকি বোনাসের অর্ধেক টাকা আজও পর্যন্ত তাদেরকে দেয়নি। অন্যদিকে বাৎসরিক ছুঁটির টাকা গত জুন মাসে দেয়ার কথা ছিলো কিন্তু তা আজও পর্যন্ত দেয়া হয়নি। এমনকি অনেক শ্রমিককে বাৎসরিক ছুঁটির টাকা মোটেও দেয়নি এবং নারী শ্রমিকদের মাতৃত্বকালীণ ছুঁটির টাকা এখন পর্য়ন্ত দেয়া হয়নি। প্রতি মাসে শ্রমিকদের ওভারটাইম কেটে নেয়া হয়। নেতারা আরো বলেন, শ্রমিকরা ৮ই জুলাই প্রতিদিনের ন্যায় কারখানায় কাজে যোগদান করতে এসে জানতে পারে মালিক পরিবর্তন হচ্ছে। পরে তারা এডমিন জিএম জাহিদ ও ডেপুটি ম্যানেজার ওমর আলীর কাছে যায় এবং তাদের পাওনাদি পরিশোধ করতে অনুরোধ জানায়। তাদেরকে কোন টাকা দেয়া হবে না বলে তারা জানিয়ে দেয় এবং মামলা ও হামলার ভয়ভীতি দেখানো হয়। এর কিছুক্ষণের মধ্যে বেআইনীভাবে বহিরাগত কিছু সন্ত্রাসী কারখানায় প্রবেশ করে শ্রমিকদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে ২০জন শ্রমিক আহত হয়। তারা বর্তমানে চিকিৎসাধিন আছেন। পরেরদিন তারা কাজে যোগ দিতে গিয়ে কারখানা বন্ধ পায়। এরপরেও মালিক পক্ষ তাদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে ৩জন শ্রমিক আটকসহ নানা রকম হয়রানী করতে শুরু করেছে। কারাখানার কর্তৃপক্ষ যা করেছে তা সম্পূর্ন বেআইনী। তাই অনতিবিলম্বে শ্রমিকদের সকল সমস্যা সমাধান করার আহবান জানান নেত্রীবৃন্দ। অন্যথায় তাদের এই কর্মসূচী অব্যাহত থাকবে বলে হুশিয়ারী দেন নেত্রীবৃন্দ।

1390cookie-checkমিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও পাওনাদি পরিশোধের দাবীতে মানববন্ধন

Author: Faruk

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *