হাসপাতালে করোনায় মৃ‌ত্যু স্বামীর, বাড়িতে মারা গেলেন স্ত্রী

ভারতের নাগপুরে এক দম্পতি করোনায় আক্রান্ত  হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। সুস্থতার আলো তারা দেখেননি।  দুজনই মারা গেছেন করোনায়। অদ্ভূত ব্যাপার হচ্ছে মাত্র আধাঘণ্টার ব্যবধানে পৃথক স্থানে তাদের দুজনই মৃত্যু হয়।

ভারতের নাগপুরে এই আক্রান্ত দম্পতি চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। তার স্বামীর বয়স ৬৬ বছর, আর স্ত্রীয়ের বয়স ৬০ বছর। স্বামী করোনার কঠিন উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন হাসপাতালে। আর স্ত্রী করোনা আক্রান্ত হয়ে বাড়িতেই ছিলেন। বাড়িতেই স্ত্রীর চিকিৎসা চলছিল। তাদের একমাত্র ছেলের বয়স ৩৯ বছর,  পুত্রবধূর ও নাতিও আক্রান্ত করোনা ভাইরাসে। তাদের বয়স যথাক্রমে ৩৩ বছর ও ১৪ বছর।

সোমবার ৬৬ বছরের স্বামীর হঠাৎ বেশি শরীর খারাপ হতে শুরু করে। তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেখানে তার শারিরীক অবস্থার আরও অবনতি হতে থাকে। তারপর কোভিড টেস্ট করে দেখা যায় তিনি করোনা আক্রান্ত। এদিকে বাড়িতে তখন ক্রমে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন তার স্ত্রী।

পরে সোমবার ৬৬ বছরের মানুষটির হঠাৎ বেশি শরীর খারাপ হতে শুরু করে। তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেখানে তার শারিরীক অবস্থার আরও অবনতি হতে থাকে। তারপর কোভিড টেস্ট করে দেখা যায় তিনি করোনা আক্রান্ত। এদিকে বাড়িতে তখন ক্রমে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন তার স্ত্রী।

বাড়িতে এভাবে অসুস্থ হয়েই মৃত্যু হয় স্ত্রীয়ের। এরপর হাসপাতাল থেকে ফোন আসে, অনেকক্ষণ আগে মৃত্যু হয়েছে করোনা আক্রান্ত ওই ভদ্রলোকের। পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ৩ টে থেকে ৩.‌৩০–এর মধ্যেই দু’‌জনের দুই স্থানে মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় একেবারে অবাক হয়ে গিয়েছেন পরিবারের সকলে। দু’‌জনেরই মৃত্যু হয়েছে করোনায়।

পরিবারের সকলের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তাদের মধ্যে আক্রান্ত হয়েছেন পরিবারের বাকি অনেক সদস্যই। তবে বেশিরভাগই উপসর্গহীন। তাই আপাতত পরিবারের পুত্রবধূ ও নাতনি বাড়িতেই করোনা আক্রান্ত অবস্থায় কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। তাদের চিকিৎসা চলছে। আর তাদের একমাত্র সন্তান উপসর্গহীন হলেও ভর্তি রয়েছেন হাসপাতালে। সেখানে তার চিকিৎসা আপাতত চলছে।

14120cookie-checkহাসপাতালে করোনায় মৃ‌ত্যু স্বামীর, বাড়িতে মারা গেলেন স্ত্রী

Author: Faruk

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *