বাংলাদেশের ক্রিকেটে সাকিবের গৌরবময় ১৪ বছর

বিগত ১৪ বছর ধরে সমর্থন যুগিয়ে যাবার জন্য ভক্তকুলকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ দলের সেরা অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসান। নানান উত্থান পতনেও উজ্জলতায় পুর্ণ ছিল তার এই পথচলা। খবর বাসসের।

২০০৬ সালের ৬ আগস্ট জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে সাকিব আল হাসানের। তবে শুরুতেই চোখ ধাধানো নৈপুন্য দেখাতে পারেননি তিনি। বাংলাদেশ দলের গভীরে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে সময় নিয়েছেন তিনি। এরপর প্রতি বছর তিনি কোন না কোন রেকর্ড ভেঙ্গে গেছেন। এবং গড়েছেন নতুন মাইল ফলক। এভাবে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তারকা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন সাকিব।

নিজের ফেসবুকে সাকিব লিখেছেন, ‘বিগত ১৪ বছর ছিল আমার জন্য বিরামহীন পথ চলা। আমি এমন এক যাত্রা শুরু করেছিলাম যে যাত্রা আমাকে সেই ব্যক্তিতে পরিণত করেছে যা নিয়ে আমি গর্বিত।’

সমর্থকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সাকিব লিখেছেন,‘আমি যত বেশী বাাঁধা পেয়েছি ততই আমার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের স্পৃহা বেড়েছে। আসন্ন বছলগুলো নিয়েও আমি খুবই আশাবাদী এবং রোমঞ্চিত। যারা আমার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে যুক্ত করেছেন এবং আমাকে সমর্থন যুগিয়েছেন তাদের প্রতি আমি অনেক কৃতজ্ঞ। আপনাদের সহযোগিতা ছাড়া কখনোই এই অর্জন সম্ভব ছিলনা। আপানাদের ধন্যবাদ।’

এই মুহূর্তে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের নিষেধাজ্ঞায় রয়েছেন দেশসেরা এই অল রাউন্ডার। এই বছরের ২৯ অক্টোবর শেষ হচ্ছে তার এই নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ। যে কারণে সেপ্টেম্বর থেকে অনুশীলনে ফেরার লক্ষ্য স্থির করেছেন সাকিব। কারণ তিনি মসৃনভাবে প্রতিযোগিতামুল ক্রিকেটে প্রত্যাবর্তন করতে চান।

সাকিবের পরিবারের এক সদস্য জানিয়েছেন, আগস্টের শেষ সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরতে পারেন তিনি। আগামী অক্টোবর-নভেম্বর মাসে বাংলাদেশ দলের শ্রীলংকা সফরের সম্ভাবনা রয়েছে। এ সফরে সাকিবের যুক্ত হবার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এই মুহুর্তে সেটি নিয়ে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি।

তবে তিনি ব্যক্তিগত উদ্যোগে অনুশীলন করার পরিকল্পনা করছেন, যেমনটি তিনি করেছিলেন ২০১৯ বিশ^কাপের আগে। এর ফলও তিনি হাতে হাতে পেয়েছেন বিশ্ব মঞ্চে।

জাতীয় দলের সাবেক গেম ডেবেলপমেন্ট ম্যানেজার ও বিকেএসপির বর্তমান উপদেষ্টা নাজমুল আবেদিন ফাহিম সাংবাদিকদের বলেন,‘ আগামী মাসে সাকিব বিকেএেসপিতে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এখানে তিনি অনুশীলন করবেন।

এ পর্যন্ত ৫৬টি টেস্টে সাকিব ৩৮৬২ রানের পাশাপাশি সংগ্রহ করেছেন ২১০ উইকেট। ২০৬টি ওয়ানডে ম্যাচ থেকে তার সংগ্রহ ৬৩২৩টি রান ও ২৬০উইকেট। এছাড়া ৭৬টি আন্তর্জাতিক টি-২০ ম্যাচ থেকে সাকিবের সংগ্রহ ১৫৬৭ রান ও ৯২টি উইকেট।

Author: Faruk

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *