বেড়াতে গিয়ে দুই কিশোরী ধর্ষণের শিকার

কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার কচাকাটায় বেড়াতে গিয়ে দুই বান্ধবী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ১০ জুলাই সোমবার দুপুরে কচাকাটা থানার বল্লভের খাস ইউনিয়নের চর কৃঞ্চপুর গ্রামে।

ঘটনার তিনদিন পর থানায় অভিযোগ করে দুই নিগৃহিতার পরিবার। নিগৃহিত দুই কিশোরী এখন থানা হেফাজতে আছে বলে জানিয়েছে কচাকাটা থানার পুলিশ।

ঘটনার শিকার দুই কিশোরীর একজন স্থানীয় নুরানী মাদ্রাসার পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী (১৫) এবং অন্যজন একই মাদ্রাসার পঞ্চম শ্রেণি থেকে লেখাপড়া বাদ পড়া শিক্ষার্থী (১৪) বলে জানায় ভুক্তভোগীর পরিরবার।

ভুক্তভোগী দুই কিশোরীর কৃষক বাবা বলেন, গত সোমবার সকালে একসঙ্গে দুই বান্ধবী গ্রামের শেষ প্রান্তে একজন নানার বাড়ি এবং অন্যজন ফুফুর বাড়িতে বেড়াতে যায়। গ্রামটি চরাঞ্চল হওয়ায় কোনো সড়ক পথ না থাকায় ক্ষেতের আইল দিয়ে যেতে হয়। তারা দুজনেই সেই পথ দিয়ে বেড়াতে যায়। দুপুরে ফেরার সময় ঐ পথের পাট ক্ষেতের মাঝামাঝি আসলে আগে থেকে সেখানে ওঁৎ পেতে থাকা একই গ্রামের মজিবরের ছেলে কাঠমিস্ত্রি আল-আমিন (২৪) এবং জসমত মেম্বারের বেকার ছেলে খোকা (২১) দু’জন তাদের মেয়ে দুজনকে জাপটে ধরে ক্ষেতের ভিতরে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। এসময় তাদের মুখে কাপড় গুজে দেয়া হয় বলে জানান তারা।

পরে তাদের কান্নাকাটিতে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসে এবং তাদের সেখান থেকে উদ্ধার করে নিজ-নিজ বাড়িতে পাঠায়। এ ঘটনায় দুদিনব্যাপী স্থানীয় মাতবরদের চলে মিমাংসার দেনদরবার। পরে উপায়ান্তুর না পেয়ে ভুক্তভোগীরা ও তার বাবাসহ একজন বুধবার এবং অন্যজন বৃহস্পতিবার দুপুরে কচাকাটা থানায় অভিযোগ দেয়।

কচাকাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন অর রশিদ দুই কিশোরীর ধর্ষণের অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, প্রথম কিশোরীদের সঙ্গে ওই দুই যুবকের প্রেম থাকতে পারে। এ বিষয়ে ভিকটিমদের জিঙ্গাসাবাদ করা হচ্ছে।

কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বলেন, প্রাথমিক তদন্ত শেষে আইনানুগ ব্যাবস্থা নেয়া হবে। এ ধরনের অপরাধে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

Author: Faruk

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *