কেক কাটার পরিবর্তে খালেদা জিয়ার জন্মদিনে দোয়া-মাহফিল করবে বিএনপি

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জন্মদিনে তাঁর আরোগ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করবে বিএনপি। সারা দেশের দলীয় কার্যালয়ে নেতা কর্মীদের এ আয়োজন করার জন্য বলা হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আরোগ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা, দেশবাসী ও দলের নেতা কর্মী যারা করোনাসহ অন্যান্য রোগে মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা ও অসুস্থদের আশু সুস্থতা কামনা এবং বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের দুর্দশার হাত থেকে রেহাই পেতে আগামী ১৫ আগস্ট শনিবার দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হবে। এ জন্য ঢাকা মহানগরসহ দেশব্যাপী দলীয় কার্যালয়ে দলের নেতা কর্মীদের দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

অবশ্য বিএনপির বিজ্ঞপ্তিতে খালেদা জিয়ার জন্মদিনের প্রসঙ্গ উল্লেখ করা হয়নি।

খালেদা জিয়া দুই বছরের বেশি সময় জেলে থাকার পর সরকারের নির্বাহী আদেশে এখন ছয় মাসের জন্য মুক্ত হয়ে বাসায় আছেন। নেতা কর্মীদের সঙ্গে সাক্ষাৎও খুব কম হয়। জাতীয় শোক দিবসে কেক কেটে খালেদা জিয়ার জন্মদিন পালনের বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক বেশ আগে থেকেই। তবে ২০১৬ সাল থেকে কেক কেটে খালেদা জিয়ার জন্মদিন পালন করা হয় না। ২০১৬ সালে গুলশানের হোলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলা, বন্যাসহ বিভিন্ন কারণে এবং ২০১৭ সালে চিকিৎসার জন্য বিদেশে থাকায় ওই বছরগুলোতে কেক কেটে খালেদা জিয়ার জন্মদিন উদ্‌যাপন করেনি বিএনপি। ২০১৮ সালে ১৫ আগস্ট কোনো কর্মসূচি পালন করেনি বিএনপি। ২০১৯ সালের ১৬ আগস্ট দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে।

এ বছর খালেদা জিয়া ৭৬ বছরে পা দিচ্ছেন। ১৯৯১ সালে ক্ষমতায় আসার পর ১৯৯৩ সাল থেকে খালেদা জিয়ার জন্মদিনটি জাঁকজমকপূর্ণভাবে উদ্‌যাপন করে আসছে বিএনপি। ২০১৫ সাল পর্যন্ত এটি হয়ে আসছিল। ওই সময়ে ১৪ আগস্ট দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিটে কেক কেটে জন্মদিন উদ্‌যাপন করতেন খালেদা জিয়া। দলটির অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলোও একই ধরনের কর্মসূচি পালন করত।

Author: Faruk

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *