কোমল পানীয় পান : ভাইয়ের পর মৃত্যু হলো বোনেরও

খাদ্যের বিষক্রিয়ায় মাগুরার মহম্মদপুরের বিনোদপুর গ্রামে আজ রবিবার সকালে শিমুল মোল্যা (১০) নামে এক শিশুর মৃত্যুর মৃত্যু হয়। একই ঘটনায় আজ বিকেলে মারা গেছে তার বোন আফরিন। তারা দুইজন একই সাথে অসুস্থ হওয়ার পর আফরিনকে মাগুরা সদর হাসপাতাল থেকে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয়েছিল। সেখানে বিকাল ৪টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

নিহত শিমুল বিনোদপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র ও আফরিন বিনোদপুর কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী ছিল। তাদের বাবার নাম আরজু মোল্যা।

মাগুরা মহম্মদপুর থানার (ওসি) তারকনাথ বিশ্বাস জানান, শনিবার রাতে শিশু শিমুল ও তার বড় বোন আফরিন রাতের খাবার শেষে স্থানীয় একটি দোকান থেকে কেনা কোমল পানীয় পান করে ঘুমিয়ে পড়ে। ভোররাতে তাদের পেটব্যাথা শুরু হয়। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাদের মাগুরা সদর হাসপাতালে আনা হলে রবিবার ভোর ৬টার দিকে শিমুল মারা যায়। গুরুতর অসুস্থ তার বোন আফরিনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ পাঠানো হলে বিকাল ৪টার দিকে তারও মৃত্যু হয়। নিহতদের ময়না তদন্ত হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে প্রকৃত কারণ জানা জানা যাবে।

মাগুরা সদর হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডের সিনিয়র স্টাফ নার্স আকলিমা খাতুন জানান, তাদের মেডিসিন ওয়ার্ডের রেজিস্ট্রার বইতে শিমুল ও আফরিনের অসুস্থতার কারণ হিসাবে কোমল পানীয়ের বিষ ক্রিয়ার উল্লেখ আছে।

এদিকে নিহতের মা শ্যামলী খাতুন কাঁদতে কাঁদতে বলেন, শিমুল ও আফরিন দুইজনই রাতে ডিম ভাত খেয়েছে। খাবার শেষে শিমুল একটি কোমল পানীয় পান করেছে। আফরিন সেটি পান করেনি। কিন্তু দুইজনই ভোরে একই রকম অসুস্থ হয়েছে। কী থেকে কী ঘটলো বুঝতে পারছি না।

Author: Faruk

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *