অবশেষে জোয়ারে ভেসে যাওয়া তিন যুবকের মরদেহ মিলল

ছোট ফেনী নদীতে ঝাঁকি জাল দিয়ে মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ হওয়া ৩ পর্যটকের মৃতদেহ পৃথক পৃথক সময়ে উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিদল।

রবিবার দুপুর ১২টার দিকে ঘটনার ২৭ ঘণ্টা পরে ফেনীর দাগনভূঞা উপজেরার দেবরামপুর গ্রামের বাসিন্দা ও বসুরহাট বাজারের ব্যবসায়ী মো. মেহেদী হাসান (২০) এর মরদেহ উদ্ধার করে ডুবুরিদল। সে ফেনী জেলার দাগনভূঞা উপজেলার ৫ নম্বর ইয়াকুবপুর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের দেবরামপুর গ্রামের মো. শাহ আলমের ছেলে।

অপরদিকে, একই গ্রামের ওমানপ্রবাসী মো. আনোয়ার হোসেন (৩৬) এর মরদেহ আজ সকাল ৭টার দিকে উদ্ধার করে ডুবুরিদল। সে ফেনী জেলার দাগনভূঞা উপজেলার ৫ নম্বর ইয়াকুবপুর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের দেবরামপুর গ্রামের মো. সাহাব উদ্দিনের ছেলে।

এর আগে, ঘটনার ৭ ঘণ্টা পর গতকাল শনিবার বিকেল ৫টার দিকে নজরুল ইসলাম স্বপন (৩৫) নামে আরো এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিদল। সে ফেনী জেলার দাগনভূঞা উপজেলার ৫ নম্বর ইয়াকুবপুর ইউনিয়নের দেবরামপুর গ্রামের মৃত জয়নাল আবেদীনের ছেলে।

কোম্পানীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার জামিন মিয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি আরো জানান, দুপুর ১২টায় নিখোঁজ ৩ পর্যটকের মরদেহ উদ্ধার শেষে উদ্ধার কার্যক্রম সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত শনিবার সকাল ১০টার দিকে ২৩ জন পর্যটক মুছাপুর ক্লোজারে ঘুরতে আসে। তাদের মধ্যে থেকে সাতজন ঝাঁকি জাল দিয়ে শখ করে ছোট ফেনী নদীর মিষ্টি পানির অংশে মাছ ধরতে নামে। একপর্যায়ে হঠাৎ জোয়ারের পানিতে তিন পর্যটক ডুবে যায়। পরে দুই দিন ধরে ছোট ফেনী নদীতে অভিযান চালিয়ে ডুবুরিদল তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করে।

Author: Faruk

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *