ঘুমের ঔষধ খাইয়ে দুই কিশোরীকে গণধর্ষণ, আটক ২

ঠাকুরগাঁওয়ে দুই কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় পীরগঞ্জ থানায় ৫ জনের নাম উল্লেখ করে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন ধর্ষিত কিশোরীর বাবা। এ ঘটনায় ২ জনকে গ্রেফতার করেছে পীরগঞ্জ থানা পুলিশ। বুধবার (১৯ আগস্ট) ভোর রাতে তাদের আটক করা হয়।

পুলিশ জানায়, মোবাইলে ডেকে নিয়ে রাতভর ধর্ষণ করা হয়েছে এমন অভিযোগে কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে থানায় ৫ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা করেন। বাদী এজাহারে উল্লেখ করেন ময়মনসিংহ জেলার এক সুতার কারখানায় চাকুরী দেয়ার কথা বলে রাণীশংকৈল উপজেলার ভোলাপাড়ার বাসিন্দা এক কিশোরীর সাথে পার্শ্ববর্তী পীরগঞ্জ উপজেলার নয়নের পরিচয় হয়।

পূর্ব পরিচয়ের সুবাদে নয়ন ভালো জায়গায় ওই কিশোরীকে চাকুরী পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে বিভিন্ন সময় তাদের বাসায় যাতায়াত করে ও মোবাইলে যোগাযোগ রাখে। ঘটনার দিন গত ১৭ আগস্ট বিকেলে নয়ন মোবাইলে কিশোরীকে জেলার পীরগঞ্জ উপজেলায় আসতে বলে। নয়নের ফোন পেয়ে কিশোরী তার প্রতিবেশী এক মেয়েকে সাথে নিয়ে পীরগঞ্জে আসলে নয়ন ও তার চারবন্ধু সবুজ, হিরেন চন্দ্র শীল, ফরিদ হোসেন ও সেলিম তাদেরকে রিসিভ করে।

পরে কথাবার্তা শেষে কিশোরী মোবাইলের ব্যাটারি কিনতে চাইলে নয়ন তাকে পীরগঞ্জের সেনুয়া বাজারে তার পরিচিত এক দোকানে নিয়ে যায়। সেখান থেকে পীরগঞ্জে ফিরতে সন্ধ্যা হয়। এ সময় নয়ন তাদেরকে ইজিবাইকে করে নিজ বাসায় নিয়ে যাওয়ার কথা বলে ঘুমের ঔষধ মিশিয়ে জুস ও চিপস খেতে দেয়। এসব খাওয়ার পর ঘুম ঘুম ভাব হলে তাদের সবুজের বাসায় নিয়ে প্রথম দফা ধর্ষণ করে।

আবার সেখান থেকে তাদের নিয়ে ভোমরাদহ এলাকার একটি আখ ক্ষেতে নিয়ে রাতভর তাদের উপর পাশবিক নির্যাতন চালায় নয়ন ও তার বন্ধুরা। নির্যাতন শেষে ভোর রাতে ভোমরাদহ স্টেশনের কাছে রেললাইনের পাশে তাদের ফেলে পালিয়ে যায় তারা। পরে আহত অবস্থায় দুই কিশোরী ইজিবাইকে করে নিজ বাসায় ফিরে। পরবর্তীতে অভিভাবকদের বিষয়টি জানালে কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে পাঁচজনের নাম উল্লেখ করে পীরগঞ্জ থানায় ২৮ আগস্ট একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করে।

ঘটনার সূত্র ধরে বুধবার (১৯ আগস্ট) ভোর রাতে উপজেলার সেনুয়া ও পীরগঞ্জ থেকে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে নয়ন ও সবুজকে গ্রেফতার করে পীরগঞ্জ থানা পুলিশ।

মামলার আসামিরা হলেন, পীরগঞ্জের সেনুয়া বানিয়া পাড়ার মো: আলতাফুর রহমানের ছেলে নয়ন ইসলাম (২২) ও ভোমরাদহ চিলাছাপা এলাকার মো: ওসমান আলীর ছেলে মো: সবুজ (২০)। মামলার অন্য আসামীরা হলেন- হিরেন চন্দ্র শীল (২৬), ফরিদ হোসেন (২২) ও সেলিম (২২)।

ধর্ষণের অভিযোগে ২ যুবককে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে পীরগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ও মামলার আইও খায়রুল আনাম ডন জানান, এখন পর্যন্ত এজাহারভুক্ত দু’জন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে বাকী আসামিদের ধরতে চেষ্টা চলছে।

59960cookie-checkঘুমের ঔষধ খাইয়ে দুই কিশোরীকে গণধর্ষণ, আটক ২

Author: Faruk

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *