২০ মাস ভাড়া দেয়নি ভাড়াটিয়া, উল্টো বাড়ির মালিককেই হুমকি

নিজস্ব প্রতিবেদক:

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার বারোঘরিয়া ইউনিয়নের লক্ষীপুর-ঝোরকাটাপাড়া এলাকার ২০ মাস ধরে ভাড়া না দিয়ে বাড়িতে অবস্থান করছে ভাড়াটিয়া নুরুন নাহার হিরামতি। জোরপূর্বক বাড়িতে অবস্থান করলেও ভাড়া চাইতে গেলে উল্টো বাড়ির মালিককেই হুমকি, মামলার ভয় ও গালিগালাজ দেয় ভাড়াটিয়া হিরামতি। এমনকি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের মাধ্যমে কয়েকদফা বাড়ি ছাড়ার নোটিশ দেয়া হলে বাড়ি ছাড়ার অঙ্গীকার করেও ছাড়তে নারাজ এলাকায় দেহব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত ভাড়াটিয়া হিরামতি। ইউনিয়ন পরিষদ ব্যর্থ হলে বাড়ির মালিক লক্ষীপুর-ঝোরকাটাপাড়া এলাকার মৃত তালেব আলীর ছেলে মো. মফিজ উদ্দিন গত ২২ আগস্ট সদর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ ও ভাড়াটিয়ার তথ্য সম্মলিত নথি সূত্রে জানা যায়, ২০১৬ সালের ৫ ডিসেম্বর মাসিক ৩ হাজার টাকা চুক্তিতে পুরাতন বারঘরিয়া ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন বিশ্বাসপাড়ায়  দ্বিতীয় তলা বাড়ির প্রথম তলায়   মফিজ উদ্দিনের বাসা ভাড়া নেয় নুরুন নাহার ওরফে হিরামতি। ২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়িভাড়া ঠিকমতোই পরিশোধ করে হিরামতি। এরপর ২০ মাস পেরিয়ে গেলেও আর ভাড়া দেয়নি চাঁপাইনবাবগঞ্জ বিধবা নারী সংস্থার সভানেত্রী হিরামতি। ভাড়া চাইতে গেলে উল্টো বাড়ির মালিক মফিজ উদ্দিনকেই বিভিন্ন হুমকি, অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও ভয়ভীতি দেখায় ভাড়াটিয়া।

হিরামতির জাতীয় পরিচয়পত্র, ভাড়াটিয়া সম্পর্কিত তথ্য ও কোর্টের মাধ্যমে বিয়ের নথি হতে জানা যায়, একেক জায়গায় তার নাম ও ঠিকানা একেক রকম। কোথাও হিরামতি, কোথাও নুরুন নাহার হিরা, আবার কোথাও শুধু হিরা। ভাড়াটিয়ার তথ্যে তার তার স্থায়ী ঠিকানা চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার রসুলপুর উল্লেখ থাকলেও জাতীয় পরিচয়পত্রের ঠিকানা ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের দক্ষিণ বনশ্রী। স্বামীর নাম নিয়েও রয়েছে অসংগতি।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রাতে তার বাড়িতে বিভিন্ন বয়সী পুরুষের আনাগোনা রয়েছে। এমনকি তার বিরুদ্ধে দেহব্যবসারও অভিযোগ রয়েছে স্থানীয়দের। জানা যায়, গত বছরের ১৮ ফেব্রুয়ারী রাতে জেলা জর্জ কোর্টের আইনজীবী অ্যাড. হাসান জামিল বাবলুর সাথে হিরামতিকে নিজের ভাড়া বাড়িতে অনৈতিক কাজের সময় হাতেনাতে আটক করে স্থানীয়রা। পরে সদর থানা পুলিশ অ্যাড. হাসান জামিল বাবলু ও হিরামতিকে থানায় নিয়ে যায়। কোর্ট ম্যারেজের কপি হতে জানা যায়, ১’শ ১১ টাকা নগদ দেনমোহর দিয়ে হিরামতিকে গত বছরের ৩১ মার্চ বিয়ে করেন অ্যাড. হাসান জামিল। তবে সেটিও খুব বেশি দিন টিকেনি। বর্তমানে তাদের ডিভোর্স হয়েছে বলে জানা গেছে।

বাড়ির মালিক মফিজ উদ্দিন বলেন, গত ২০ মাস ধরে হিরামতি কোন ভাড়া দেয় না। চাইতে গেলে উল্টো নারী নির্যাতন ও ভাড়াটিয়া আইনে মামলার হুমকি দেয় সে। ইউনিয়ন পরিষদে কয়েকবার অভিযোগ করেও এর কোন সমাধান পায়নি। অবসরপ্রাপ্ত ব্যাংক কর্মকর্তা মফিজ উদ্দিন আরো বলেন, বৃদ্ধ অবস্থায় খুবই অসহায় বোধ করছি। মনে হচ্ছে দেশে আইন-আদালত কিছুই নাই। আমার বাড়ি ভাড়া দিয়ে ভাড়া দেয় না। উল্টো আমাকেই ভয় ও হুমকি দেয়।

দীর্ঘদিন ধরে ভাড়া না দেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বারোঘরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহা. আবুল খায়ের জানান, বাড়ির মালিকের আবেদনের প্রেক্ষিতে কয়েকবার নোটিশ পাঠালে ভাড়া পরিশোধ করে বাড়ি ত্যাগ করার অঙ্গিকার করলেও তা শোধ না করেই জোর করে বাড়িতে অবস্থান করছে। নারী নির্যাতন মামলাসহ বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে ভাড়া না দিয়েও তার সেখানেই অবস্থান করছে হিরামতি। ইউনিয়ন পরিষদ কয়েকবার চেষ্টা করেও এর সমাধানে ব্যর্থ হয়েছে বলে জানান তিনি।

তদন্ত কর্মকর্তা সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সোহেল মুঠোফোনে জানান, কয়েকবার ঘটনাস্থলে গেলে হিরামতি নিজেই বাড়ির কাছে টাকা পাবো দাবি করে। এমনকি বাড়ি ছাড়বো না বলেও জানিয়ে দেন হিরামতি।

অভিযোগ অস্বীকার করে মুঠোফোনে নুরুন নাহার ওরফে হিরামতি জানান, সব ভাড়া পরিশোধ করা আছে। অহেতুক ঝামেলা করছেন বাড়ির মালিক। ভাড়া নিয়ে কোন কিছু করলে বাড়ির মালিকের বিরুদ্ধে মামলা করার হুমকি দিয়ে তিনি বলেন, গত ফেব্রুয়ারিতে একটি ঝামেলা হলে বাড়িতে ঢুকে মালিক মফিজ উদ্দিন ও চেয়ারম্যান আবুল খায়ের। তারপরেই বাসা হতে ৭৫ হাজার টাকা হারিয়ে যায়। বিষয়টি নিয়ে সাংবাদিকদের জানানো হয়েছে উল্লেখ করে ক্ষোভ প্রকাশ করেন এলাকায় দেহব্যবসায় অভিযুক্ত হিরামতি। এসময় অ্যাড. জামিলের সাথে নিজের ডিভোর্সের কথা ও তার ফোন নম্বর দিতে অস্বীকার করে হিরামতি।

78830cookie-check২০ মাস ভাড়া দেয়নি ভাড়াটিয়া, উল্টো বাড়ির মালিককেই হুমকি

Author: Faruk

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *