আ:লীগের শর্তানুযায়ী অবশেষে ক্ষমা চেয়ে ভোলাহাটে ঢুকলেন বিএনপির এমপি আমিনুল হাজি

নিজস্ব প্রতিবেদক ;

চাঁপাইনবাবগঞ্জ -২ আসনের বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আমিনুল ইসলামের উপস্থিতিতে বঙ্গবন্ধুকে অবমাননা করায় দীর্ঘ ৮ মাস এলাকায় অবাঞ্ছিত হয়ে সোমবার ৩১ আগষ্ট নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে এলাকায় প্রবেশ করেন।

অবাঞ্ছিত হয়ে থাকায় ৮ মাস তিনি এলাকায় প্রবেশ করতে পারেনি। তিনি তার নির্বাচনী এলাকায় আসতে চাইলে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করে এমন অবস্থায় স্থানীয় প্রশাসন ও আওয়ামী লীগ নেতারা কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেনের সাথে পরামর্শ করে বঙ্গবন্ধু কে নিয়ে গান গাওয়া সেই ছাত্রীর কাছে ভুল স্বীকার করার শর্ত দেওয়া হয় বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্যকে।

সেই অনুযায়ী সোমবার বেলা ১১ টায় ভোলাহাট উপজেলার মুশরীভুজায় লাঞ্ছনার স্বীকার ইসরাত জাহান বর্ষার বাড়ীতে স্থানীয় সংসদ সদস্য উপস্থিত হয়ে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার জন্য ভুল স্বীকার এবং এরকম ঘটনা যাতে ভবিষ্যতে না ঘটে তিনি আশ্বস্ত করেন।

এসময় আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বর্ষার বাবা দলদলি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও আওয়ামী লীগ নেতা লাল মোহাম্মদ পুতুল, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য মহিবুল হক,ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি হারুন, আওয়ামী লীগ নেতা ফাইজুল,দলদলি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হুজ্জাতুল ইসলাম ডন।

উল্লেখ্য গত ২৭ জানুয়ারি ভোলাহাট মুশরীভুজা ইউসুফ আলী স্কুল এন্ড কলেজের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের নবীন বরণ ও বিদায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব  আমিনুল ইসলাম। সেই অনুষ্ঠানে ঐ স্কুলের শিক্ষার্থী ইসরাত জাহান বর্ষা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে ‘যদি রাত পোহালে শোনা যেতো বঙ্গবন্ধু মরে নাই’ গানটি গাওয়ার এক পর্যায়ে সংসদ সদস্যের সফরসঙ্গী লতিফুর রহমান বিলাস তার হাত থেকে মাউথপিস কেড়ে নেয় এবং গানের স্ক্রিপ্ট ছুড়ে ফেলে। এ ঘটনা জানাজানি হলে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মাঝে চরম উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এ ঘটনায় ভোলাহাট থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের হয়। ২৮ জানুয়ারি বিলাসসহ তিনজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ । অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে সংবাদ সম্মেলন হয় ৩০ জানুয়ারি

পরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবমাননা করায় ৩০ জানুয়ারি ভোলাহাট উপজেলা আওয়ামী লীগ সংবাদ সম্মেলন করে বিএনপি দলীয় এমপি মোঃ আমিনুল ইসলাম কে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে। তার ধারাবাহিকতায় গোমস্তাপুর ও নাচোলেও অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করে বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠন।

এ ব্যাপারে ভোলাহাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডাঃ আশরাফুল হক চুনু ও সাধারণ সম্পাদক ইয়াসিন আলী শাহ র সাথে যোগাযোগ করলে জানান, ‘স্থানীয় সংসদ সদস্য কে আমরা সংবাদ সম্মেলন করে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছিলাম। তার এলাকায় আসার খবর শুনে আমরা উপজেলা আওয়ামী লীগসহ অঙ্গসহযোগী সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দকে ২ দিন আগে মিটিংয়ে বসি এবং কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেনের সাথে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত হয়।সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত হয় স্থানীয় সংসদ সদস্য এলাকায় আসতে চায় তাহলে প্রথমে লাঞ্ছনার শিকার বর্ষা ও তার পরিবারের কাছে নিঃশর্তভাবে ভুল স্বীকার করতে হবে। সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আজ সে মুশরীভুজায় বর্ষার বাড়িতে নিজে উপস্থিত হয়ে ঘটনার জন্য ভুল স্বীকার করে। ‘

তবে তিন উপজেলার আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ সহ বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীদের দাবি ছিলো বিএনপি দলীয় এমপি বঙ্গবন্ধুর অবমাননার জন্য সংসদে ক্ষমা চাইবে। তবে এই সাংগঠনিক সিদ্ধান্তকেও তারা মেনে নিয়েছে।

79280cookie-checkআ:লীগের শর্তানুযায়ী অবশেষে ক্ষমা চেয়ে ভোলাহাটে ঢুকলেন বিএনপির এমপি আমিনুল হাজি

Author: Faruk

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *