গোমস্তাপুরে প্রেমের টানে মরিয়া মুসলিম মেয়ে হিন্দু ছেলের বাড়িতে

গোমস্তাপুর প্রতিনিধি :

রাজশাহীর বোয়ালিয়া হতে ধনাঢ্য মুসলিম পরিবারের এক মেয়েকে পালিয়ে এনে বাল্যবিয়ে করেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ গোমস্তাপুরের হিন্দু সম্প্রদায়ের এক ছেলে। বোয়ালিয়া থানায় মেয়ের পরিবারের অপহরণ ও নারী নির্যাতনের অভিযোগের প্রেক্ষিতে বুধবার সকালে ছেলেমেয়েকে আটক করেছে গোমস্তাপুর থানা পুলিশ। পরে তাদেরকে বোয়ালিয়া থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করা হয়।
তথ্য সূত্রে জানা যায়,রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানার সাং-ঘোড়ামারা বাজেকাজলা, পিতাঃ মকসেদুল ,মাতাঃ সীমা বেগম এর মেয়ে সুমি খাতুন কে ফেসবুকে প্রেমের সূত্র ধরে সোমবার নিজ বাড়ীতে ভাগিয়ে নিয়ে আসে গোমস্তাপুর সাং- বাজারপাড়ার, পিতাঃ ঝাটু হলদার, মাতাঃবিজলী রানি হলদারের ছেলে শ্রী সুইট কুমার হলদার।
এদিকে এলাকায় পরিচয় গোপন করে ১০ম শ্রেণীর ছাত্রী সুমি খাতুনকে প্রিয়া ঘোষ নাম বলে বিয়ে হয়েছে জানিয়ে পরিচয় দেয় শ্রী সুইট কুমার হলদারের পরিবার।

জন্ম সনদ সূত্রে জানতে পারি, বাংলাদেশের প্রচলিত আইনে ছেলেদের বিবাহের বয়স ২১ বছর হলেও সুমিকে পালিয়ে এনে বাড়িতে রাখার দিন সুইট কুমার হলদারের বয়স মাত্র ১৬ বছর ৭ মাস ১২ দিন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক থাকায়, শ্রী সুইট কুমার হলদার এর পরিবার বিষয়টি গোপন রাখার চেষ্টা করে কিন্তু জনমনে সন্দেহের সৃষ্টি হলে মেয়ের পরিবার তিনদিন পর শ্রী সুইট কুমার হলদারের বাড়িতে সুমি খাতুন কে নিতে আসে। শ্রী সুইট কুমার হালদার এর পরিবার মেয়েকে দিতে অনিচ্ছা প্রকাশ করে।
শ্রী সুইট কুমার হলদারের পরিবারের দাবি, হিন্দু রীতি মেনেই শাঁখা সিঁদুর পড়িয়ে তাদের দুজনের বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। তবে এর পক্ষে কোন প্রমাণ দিতে পারে নি শ্রী সুইট কুমার হলদারের পরিবার।

Author: Faruk

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *